শিগগিরই চালু হচ্ছে শিশু আদালত

কিশোর বাংলা প্রতিবেদন: সাধারণ আদালতের মতো লালসালু মোড়ানো এজলাস থাকবে না। থাকবে না কোনো ডক ও কাঠগড়া। আদালত কক্ষের পরিবেশ হবে অনেকটা ঘরোয়া ও পারিবারিক। আইনের আওতায় আসা শিশুদের জন্য শিশুবান্ধব পরিবেশ নিশ্চিত করতে শিশু আইন অনুযায়ী ব্যতিক্রমধর্মীভাবে সাজানো হচ্ছে শিশু আদালতের কক্ষ।
খুব শিগগিরই ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে এ ধরনের চারটি শিশু আদালত উদ্বোধন হবে।
সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, নির্ধারিত এসব আদালতে বিচারকার্য চলাকালে উকিল ও বিচারকের গায়ে থাকবে না নির্ধারিত গাউন (বিশেষ ধরনের নির্ধারিত পোশাক)। পুলিশ বা আদালতের কোনো কর্মচারীও পেশাগত বা দাপ্তরিক কোনো পোশাক পরতে পারবে না। আদালত কক্ষের পাশেই থাকবে একটি ওয়েটিং রুম (অপেক্ষা কক্ষ)।
এ ছাড়া থাকবে একজন প্রবেশন কর্মকর্তার কক্ষ। ওয়েটিং রুম ও প্রবেশন কর্মকর্তার কক্ষ সাজানো হচ্ছে বিভিন্ন চিত্রকর্ম দিয়ে। অভিযুক্ত শিশুরা সার্বক্ষণিক প্রবেশন কর্মকর্তার সান্নিধ্য ও সহায়তা পাবে। বিচারকাজ শুরুর আগে শিশু তার মাতা-পিতা বা অন্য অভিভাবকের সান্নিধ্যে অপেক্ষা করতে পারবে। ফলে অন্যান্য আদালতে আনীত বয়স্ক অভিযুক্ত ব্যক্তির সঙ্গে এসব শিশুর সংমিশ্রণের সুযোগ থাকবে না।