ঘুমের সময় চাপা পড়ে শিশুমৃত্যু

কিশোর বাংলা প্রতিবেদন: যুক্তরাজ্যে প্রকাশিত এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, প্রতি সপ্তাহে দুজন শিশু অন্যদের সঙ্গে শোয়ার ফলে অসচেতন থাকার ফলে ঘুমের সময় চাপা পড়ে মারা যাচ্ছে। একে সাডেন ইনফ্যান্ট ডেথ সিন্ড্রোম বলা হচ্ছে।
যুক্তরাজ্যে প্রকাশিত পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকা থেকে জানা যায়, শিশুর সঙ্গে এক বিছানায় ঘুমানোর ফলে সপ্তাহে দুজন শিশু মারা যায় এবং গত পাঁচ বছরে ৬৬৫ জন শিশুর মৃত্যুর সময় কারো না কারোর সঙ্গে বিছানায় ঘুমানো ছিল। 
শিশুর ঘুমের সঙ্গীর যদি কোনো নেশা দ্রব্যে আসক্তি থাকে তবে সেটিও শিশুর ক্ষেত্রে মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে।
যুক্তরাজ্যের রয়্যাল কলেজ অফ মিডওয়াইফস’র শিক্ষা উপদেষ্টা গেইল জনসন এই পরিসংখ্যানটিকে উদ্বেগের বিষয় বলে মনে করেন।
শিশুদের ঘুমের সঙ্গীকে শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন হতে হবে এবং একে কমিয়ে আনার জন্য পদক্ষেপ নিতে হবে।
যদি সন্তানের মা বা বাবা অথবা উভয়েই বা অন্য কেউ বাচ্চার সাথে একত্রে ঘুমান, তবে শিশুর মাথা পুরোটা ঢেকে না দেয়া, শিশুর অতিরিক্ত গরম যাতে না লাগে সেদিকে খেয়াল করা, তাছাড়া ঘুমের মধ্যে শিশুটি যাতে বিছানা থেকে পড়ে না যায়, লক্ষ্য রাখতে হবে।
এছাড়াও শিশুর জন্য বিছানায় পর্যাপ্ত জায়গা নিশ্চিত করাসহ শিশুর জন্য ক্ষতিকর সকল বিষয়ের প্রতি সতর্ক থাকতে হবে। তবেই শিশুর মৃত্যু ঝুঁকি কমে আসতে পারে।
শিশু কারো সাথে সোফায় বা চেয়ারে ঘুমালে ঝুঁকি বেশি হয়, তাই এটি একেবারে এড়িয়ে যাওয়া উচিত। 
যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের পরামর্শমতে, পিতামাতাকে সতর্ক করে দেয়া দরকার যে, শিশুর সাথে এক বিছানায় ঘুমানো একটি সংবেদনশীল বিষয়।    
শিশুর সাথে মা-বাবা বা অন্য যে কেউ একসঙ্গে ঘুমানোর ফলে গত ৫ বছরের ধারাবাহিক জরিপে দেখা যায়, ২০১৭ সালে ১৪১ জন, ২০১৬ সালে ১৩১ জন, ২০১৫ সালে ১২১ জন, ২০১৪ সালে ১৪১ জন এবং ২০১৩ সালে ১৩১ জন শিশু মারা গেছে।