এই সময়ে
হোম / ফিচার / জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ব্যতিক্রমী এক কমিক্স প্রতিযোগিতা
কমিক্স

জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে ব্যতিক্রমী এক কমিক্স প্রতিযোগিতা

কিশোর বাংলা প্রতিবেদন: ‘আমাদের আশা ছিল শিশুদের মনের মাঝে থাকা শেখ মুজিবুর রহমানকে দেখা। এখানে তাই দেখতে পাচ্ছি।’ গতকাল শনিবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আয়োজন ব্যতিক্রমী এক কমিক্স প্রতিযোগিতায় এ কথা বলেন সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক।
বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় মুজিব গ্রাফিক নভেলের মতো কার্টুন চরিত্রে উপস্থাপন করা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। প্রায় ৩০ জন শিশু-কিশোর তাদের কল্পনার তুলির ছোঁয়ায় ফুটিয়ে তোলে বঙ্গবন্ধুর অবয়বকে।
বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে সকাল ৯টা থেকে চলা এই আয়োজনে কমিক্স প্রতিযোগিতার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ ও তার ওপর নির্মিত ডকুমেন্টারি, জীবনপঞ্জির নানা ডিসপ্লে এবং অডিও ভিজুয়াল প্রদর্শন করা হয়। জাদুঘরে আসা শিশুদের জন্য ছিল দেয়ালে ও ক্যানভাসে বঙ্গবন্ধুকে ফুটিয়ে তোলার বিশেষ ব্যবস্থা।
প্রতিযোগিতা শেষে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানে দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক বলেন, শিশু-কিশোরদের কাছে তাদের মতো করে শেখ মুজিবুর রহমানকে উপস্থাপনের জন্য মুজিব গ্রাফিক নভেল প্রকাশ করা হয়। গত কয়েক বছর ধরেই আমরা এ ধরনের একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করার চেষ্টা করছি। কমিক্স প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শিশুদের মনে থাকা মুজিবকে ক্যানভাসে দেখতে পাচ্ছি আমরা। এখন থেকে প্রতি বছর এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হবে।
এ সময় তিনি নতুন প্রজন্মের কার্টুনিস্টদের উদ্দেশ্য করে বলেন, পেশাদারভাবে কার্টুন নিয়ে কাজ করতে হবে। আশা করছি এই প্রতিযোগিতার পর আপনারা কমিক্স নিয়ে আরো অনেক কাজ করবেন।
প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে বিজয়ী ৬ জনের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। পাশাপাশি মুজিব গ্রাফিক নভেলের ফেসবুক পেজে হয়ে যাওয়া এক কুইজ প্রতিযোগিতার ৩ বিজয়ীর হাতেও পুরস্কার তুলে দেন তিনি। বঙ্গবন্ধুর জীবনে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনার আলোকে কুইজটির আয়োজন করা হয়। হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে দীর্ঘ গবেষণা শেষে তার নিজের লেখা ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ প্রকাশিত হয়। দেশের শিশু-কিশোর এবং তরুণ প্রজšে§র কাছে বঙ্গবন্ধুকে উপস্থাপনের কাজটি সেভাবে হয়ে ওঠেনি আগে। এ ক্ষেত্রে এগিয়ে আসেন বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক। বঙ্গবন্ধুর ঘটনাবহুল জীবনকে আকর্ষণীয়ভাবে তুলে ধরার জন্য গ্রাফিক নভেল বের করার কাজটি শুরু করেন তিনি।
বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী অবলম্বনে গ্রাফিক নভেলের কাজটি শুরু হয় ২০১৪ সালে। তার জীবনের ঘটনাবলী সব বয়সের উপযোগী করে সংলাপ ও চিত্রায়নের দুরূহ কাজটি সম্ভব করতে অনেকে ভূমিকা রেখেছেন। ‘মুজিব’ গ্রাফিক নভেলের কাজে নিবিড়ভাবে যুক্ত থেকেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আরও দেখুন

শিশু

যে গ্রামে শিশু-কিশোরদের মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ

কিশোর বাংলা প্রতিবেদনঃ শিশু ও কিশোরদের জন্য মোবাইল ফোন ব্যবহার কতটা উপযোগি তা নিয়ে অনেক …