এই সময়ে
হোম / ফিচার / গোলাপি ডলফিনের সঙ্গে প্রতিবন্ধী শিশুদের বাঁচার লড়াই
ডলফিন

গোলাপি ডলফিনের সঙ্গে প্রতিবন্ধী শিশুদের বাঁচার লড়াই

কিশোর বাংলা প্রতিবেদনঃ জলের মধ্যে ভুস করে উঠেই আবার ডুবে গেল ডলফিন। তার সঙ্গে মাছের মতোই ডুব সাঁতার কাটতে শুরু করল লিও। যদিও তার দুটো হাত নেই। জন্ম থেকেই ঠিক মতো হাঁটতে পারে না। তার পরেও এমন তরতর করে সাঁতার কাটে কী করে লিও!

এটা একটা চমক বটে। আমাজনের গোলাপি ডলফিনের সঙ্গে তার সাঁতার কাটার ছবি হচ্ছে ভাইরাল। এই প্রাকৃতিক চিকিৎসা তাকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করেছে। ডলফিনের সঙ্গে সাঁতার কাটার এমন পদ্ধতির নাম বটোস। সেই থেকে এসেছে বটোথেরাপি।

বিবিসি জানাচ্ছে, লিও জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধী। হাত ছাড়াই তার জন্ম হয়। মেরুদণ্ড ছিল দুর্বল। ঠিক করে হাঁটতেও পারত না। ফলে কোমরের কোনও জোরই নেই। কোনওরকম হাঁটতে পারে।

লিওর মা জানিয়েছেন, ও যে এখন দৌড়তে পারে সেটাই দেখে অবাক হয়ে যাই। গোলাপি ডলফিনরা লিওকে নতুন করে বাঁচিয়ে দিয়েছে।

শুধু লিও নয়, তার মতো অনেকেই এখন ডলফিনের সঙ্গে সাঁতরে নিজেদের দাঁড় করাতে পারছে। এরা সকলেই একসময় নিজেদের কাছেই নিজেরা বোঝা হয়ে ছিল। কিন্তু ডলফিনদের স্পর্শে তারা এখন জীবন লড়াইয়ে নামতে পারছে।

যেমন লিও, হাতও নেই আবার যে হাঁটতেই পারত না তেমন, সেই এখন গাড়ি চালায় পা দিয়ে। যে কোনও গাড়ি চালকের মতো তার দক্ষতা। অদ্ভুত এই চিকিতসা পদ্ধতি লিওর জীবন পাল্টে দিয়েছে।

বিবিসি প্রতিবেদনে, গোলাপি ডলফিনদের নিয়ে এই কীর্তি প্রকাশ হয়েছে। তারপরেই দুনিয়া জুড়ে ছড়িয়েছে আলোড়ন। এমনিতে ডলফিনের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক বেশ ঘনিষ্ঠ। সেটাই এই প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের জন্য উপকার হয়েছে।

ডলফিন পাল্টে দিচ্ছে জীবন।

আরও দেখুন

নড়াইলের

নড়াইলের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশে বিদ্যালয়

কিশোর বাংলা প্রতিবেদনঃ নড়াইলের বিছালী কালিনগর এলাকার প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের জন্য ‘অটিস্টিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী স্কুল’ গড়ে …